মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১১:১১ অপরাহ্ন
ঘোষনা
অনিয়ম ও দুর্নীতির শীর্ষ পর্যায়ে রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারা কর্মকর্তারা ওরা বলে সংবিধান ছুড়ে ফেলে দিবে সাংগঠনিক সম্পাদক, আফজাল হোসেন মির্জাগঞ্জের বৈদ্যপাশায় ইছালে সওয়াব ও মাহফিল অনুষ্ঠিত। গাইবান্ধা শহরের ‘ছালমা মঞ্জিল’ নামের মেস থেকে গোবিন্দগঞ্জ নিজ বাড়িতে যাবার পথে দুই কলেজ ছাত্রী নিখোঁজের অভিযোগ উঠেছে।  গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলার দামোদরপুর ইউনিয়নে টিসিবির ডিলারের বিরুদ্ধে কার্ড ছাড়া পণ্য বিতরণের অভিযোগ উঠেছে। পুলিশের সহযোগিতায় হারিয়ে জাওয়া সন্তান খুঁজে পেলো পরিবার। সাতক্ষীরায় ১৮টি স্বর্ণের বারসহ ১ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ পুলিশের তদন্ত রিপোর্ট পুলিশের পক্ষেই থানা হেফাজতে নির্যাতনে নয়,আসামির মৃত্যু সড়ক দূর্ঘটনায়! সাপাহারে তাঁতইর বাখরপুর কওমী হাফেজিয়া সালাফিয়্যাহ মাদ্রাসায় হিফয সমাপ্তকারী প্রথম শিক্ষার্থীর বিদায় অনুষ্ঠিত তানোরে আট বিঘা জমির ফসল নষ্ট করে দিয়েছে -দুর্বৃত্তরা,

ইসলামপুর সূর্যমুখী ফুলের হাসিতে হাসছে কৃষকরা

মোঃ বাকিরুল ইসলাম
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ১৯ মার্চ, ২০২২
  • ১২০ বার পঠিত

জামালপুর জেলা প্রতিনিধিঃ
জামালপুরে ইসলামপুর উপজেলায় গঙ্গাপাড়া সদর সূর্যমুখী ফুলের চাষ করা হয়েছে। সূর্যমুখী ফুলের হাসিতে ফুটে উঠেছে মাঠগুলো। আর সূর্যমুখী ফুলের হাসিতে অধিক লাভের আশায় হাসছে কৃষকরা।

উপজেলা কৃষি অফিসের সহযোগিতায় এবার চাষিরা জমিতে সূর্যমুখী ফুলের চাষ করেছেন। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় কৃষকরা সূর্যমুখী ফুলের বাম্পার ফলনের আশা করছেন। বর্তমানে সূর্যমুখীর অধিকাংশ গাছেই ফুল ফুটেছে। এদিকে সূর্যমুখী ফুলের জমিতে এসে বিনোদনও উপভোগ করেছেন অনেকই।

উপজেলা কৃষি অফিসার এ.এল.এম রেজওয়ান আহমেদ বলেন , চলতি মৌসুমে উপজেলার সদরের গঙ্গাপাড়া আমেজ দর্জি ও ইসমাইল হোসেন প্রায় ৯০শতাংশ জমিতে সূর্যমুখী ফুলের চাষ করেছেন। কৃষকদের উপজেলা কৃষি অফিস থেকে সার ও বীজ প্রণোদনা দিয়ে সূর্যমুখী ফুল চাষে উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছে। প্রদর্শনী প্রকল্পের আওতায় ধানসহ অন্যান্য ফসলের পাশাপাশি এই সূর্যমুখী ফুলের চাষ করেছেন কৃষকরা।

সূর্যমুখী ফুলের চাষ করলে ফুল থেকে তেল, খৈল ও জ্বালানি পাওয়া যায়। চার কেজি বীজ থেকে কমপক্ষে এক লিটার তৈল উৎপাদন সম্ভব। প্রতি বিঘা জমিতে ১৫ মণ থেকে ১৬ মণ বীজ উৎপাদন হয়ে থাকে।

তেল উৎপাদন হবে প্রতি বিঘায় ১৫০ লিটার থেকে ২০০ লিটার পর্যন্ত। প্রতি লিটার তেলের বাজার সর্বনিম্ন মূল্য ২৫০ টাকা। সূর্যমুখী ফুল চাষে প্রতি বিঘা জমিতে খরচ হয় সর্বোচ্চ চার হাজার থেকে পাঁচ হাজার টাকা। বর্তমানে বাজারে ভোজ্য তেলের আকাশ ছোঁয়া দাম হওয়ার কারণে চাহিদা বেড়েছে সরিষা ও সূর্যমুখী তেলের।

আমেজ দর্জি ও ইসমাইল হোসেন বলেন, দূরদূরান্ত থেকে লোক এসে আমার সূর্যমুখী বাগান দেখে যাচ্ছে, আমি যদি সূর্যমুখী তেলের মাধ্যমে লাভবান হতে পারে, আগামী বছর সম্পূর্ণ জমিতে সূর্যমুখী ফুলের বাগান চাষ করিব, এবং আগামী বছরে যেন দূরদূরান্ত মানুষ এসে বিনোদন করতে পারে সূর্যমুখী ফুলের বাগান।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..
এই পত্রিকার সকল সংবাদ, ছবি ও ভিডিও স্বত্ত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ দৈনিক মাতৃজগত    
কারিগরি সহযোগিতায়ঃ Bangla Webs
banglawebs999991