শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ১২:১৮ পূর্বাহ্ন
ঘোষনা
যশোরে বিদেশী পিস্তল, গুলি ও বার্মিজ চাকু সহ গ্রেফতার ০১ জন চাঁপাইনবাবগঞ্জে কোটা সংস্কারের দাবিতে শিক্ষার্থীদের মহাসড়ক অবরোধ করে  রংপুরে নিহত শিক্ষার্থী আবু সাঈদের দাফন সম্পন্ন দেশের সব স্কুল-কলেজ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা গোমস্তাপুরে বিএমডিএ গোমস্তাপুর জোনাল অফিস ভবন নির্মাণ কাজের  শুভ উদ্বোধন  ফরিদপুর শহরের আদর্শ বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ছাত্রীদের যৌন নিপীড়নের অভিযোগে কারাগারে মুরাদনগরে মাদককে “না” বলি সামাজিক সচেতনতা ও অপরাধমুক্ত সমাজ গড়ি কোটা আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধাদের মানববন্ধন ফরিদপুর মেডিকেলের পরিচালককে প্রত্যাহারের দাবিতে সড়ক অবরোধ ফরিদপুরে কিশোরীকে ধর্ষণের পর হত্যা সাত বছর পালিয়ে থেকেও শেষ রক্ষা হলো না সবুজের

এক রাতের ব্যবধানে পেঁয়াজের দাম বেড়ে ২৫০ টাকা কেজি

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০২৩
  • ১০৩ বার পঠিত

আলমগীর হোসেন সাগর স্টাফ রিপোর্টার : ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ ঘোষণা করার পর দিনই গাজীপুরের শ্রীপুরে দ্বিগুণ দামে পেঁয়াজ বিক্রি করছেন ব্যবসায়ীরা। পেঁয়াজের দাম বাড়ানোয় অসহায় হয়ে পড়া ক্রেতারা বাজার মনিটর জোরদার করার দাবি জানিয়েছেন। শনিবার (৯ ডিসেম্বর) গাজীপুরের শ্রীপুরে বিভিন্ন বাজার ঘুরে এমন চিত্র লক্ষ্য করা গেছে।

বাজার ঘুরে দেখা যায়, শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত দেশি প্রতি কেজি পেঁয়াজ ১২০ টাকা কেজি দরে এবং ভারতীয় পেঁয়াজ ১০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে। ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ ঘোষণার পরপরই অনেক ব্যবসায়ীর পেঁয়াজ বিক্রি বন্ধ করে দেন আবার অনেকেই বেশি দামে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু করেন। শনিবার দুপুর ১২টায় বাজারে দেশি পেঁয়াজ ছোট-বড় সাইজ ২৪০ থেকে ২৬০ টাকা কেজি ও ভারতীয় পেঁয়াজ ২২০ টাকা থেকে ২৫০ টাকা দরে বিক্রি করছেন ব্যবসায়ীরা। তবে পাশাপাশি দোকানেও পেঁয়াজের ভিন্ন দাম হাঁকাচ্ছেন খুচরা ক্রেতারা। এক রাতের ব্যবধানে পেঁয়াজের দাম দ্বিগুণ হওয়াতে ক্রেতারা ক্ষোভ প্রকাশ করছেন। তবে পেঁয়াজের দাম বাড়ানোর সুনির্দিষ্ট কোনো কারণ জানাতে পারেননি ব্যবসায়ীরা।

বাজার করতে এসেছেন পোশাক কারখানার শ্রমিক আনোয়ার হোসেন। বাজারে ঢুকেই পেঁয়াজের দাম শুনে তার চোখ কপালে ওঠার অবস্থা। তিনি বলেন, আমাদের খাবার মজুদ করে রাখার কোনো অবস্থা নেই। আমাদের অল্প করে কিনে খেতে হয়। এক রাতের ব্যবধানে পেঁয়াজের দাম দ্বিগুণ হওয়াতে আমি ২৫০ গ্রাম পেঁয়াজ কিনেছি।

আরেক ক্রেতা বলেন, হঠাৎ পেঁয়াজের দাম দ্বিগুণ হলেও মাঠ পর্যায়ে প্রশাসনের তেমন কোনো তৎপরতা এখানো দেখা যাচ্ছে না। আমরা চাই যারা সিন্ডিকেট তৈরি করে পেঁয়াজের দাম বাড়িয়েছে তাদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় এনে বিচার করার।

পেঁয়াজের দাম বাড়ানোর বিষয়ে গণমাধ্যমে কথা বলতে চাননি খুচরা বিক্রেতারা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যবসায়ী বলেন, আমাদের দিনে যা বিক্রি হয় তা আমরা আড়ৎদারের কাছ থেকে সংগ্রহ করে খুচরা বিক্রি করি। আমাদের মজুদ করার মতো গুদাম নেই। গতকাল বিকেল থেকে পেঁয়াজ দাম বাড়ানো হবে বলে শোনা যাচ্ছিল। সকালে যখন পেঁয়াজ আনতে আড়তে যাই তখন আমাদের বেশি দামেই কিনে আনতে হয়েছে। তাই আমরা বেশি দামে বিক্রি করছি। এখানে খুচরা ব্যবসায়ীদের কোনো হাত নেই, আমরা যে টাকায় কিনি সামান্য লাভে তা বিক্রি করি।

পেঁয়াজের দাম বাড়ার বিষয়ে কোনো আড়ৎদার গণমাধ্যমে কথা বলতে রাজি হননি, আড়তে গিয়েও তাদের পাওয়া যায়নি। একাধিক আড়ৎ মালিকের মোবাইল ফোনে যোগাযোগে চেষ্টা করলে তা বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

এ বিষয়ে গাজীপুর জেলা প্রশাসক আবুল ফাতে মোহাম্মদ সফিকুল ইসলাম বলেন, কিছু অসাধু ব্যবসায়ী পেঁয়াজের দাম বাড়িয়েছে। আমাদের একাধিক মোবাইল টিম বাজার তদারকি করতে ইতোমধ্যে কাজ শুরু করেছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..
এই পত্রিকার সকল সংবাদ, ছবি ও ভিডিও স্বত্ত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ দৈনিক মাতৃজগত    
কারিগরি সহযোগিতায়ঃ Bangla Webs
banglawebs999991