রবিবার, ০৩ জুলাই ২০২২, ০৮:১৭ পূর্বাহ্ন
ঘোষনা
পদ্মা সেতু চালু হইছে,এহন তাজা মাছ পাঠামু ঢাকায়, কুয়াকাটার জেলেরা। চট্টগ্রাম পাহাড়তলীতে কাউন্সিলর এর পুত্রবধূর রহস্যজনক মৃত্যু। গোদাগাড়ীতে সততা ট্রেডার্স গোডাউনে জুস বানানোর আমে পোকা তানোরে ৭৫০ কেজি টিসিবির ডাল উদ্ধার শেখ ফজলে শামস পরশের জন্মদিন উপলক্ষে সন্দ্বীপে বিশেষ দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত। শেখ ফজলে শামস পরশের জন্মদিন উপলক্ষে সন্দ্বীপে লায়ন মিজানুর রহমানের আয়োজনে বিশেষ দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত। ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর উন্নয়নে সরকার কাজ করছে— খাদ্যমন্ত্রী শাহজাদপুর উপজেলা বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সাবেক জি এস পলাশের মৃত্যুবরণ ময়মনসিংহের ভালুকায় পরিবেশ অধিদপ্তরের অভিযান । আজ ঐতিহাসিক ‘হুল দিবস’! সিঁদু-কানু-ফুলমনি’র সংগ্রামের ইতিহাস।

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে প্রেম করে বিয়ে দেড় বছর পর গৃহবধূ মুক্তা দাসের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার। 

আলমগীর হোসেন সাগর 
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২৪ মে, ২০২২
  • ৪৯ বার পঠিত

গাজীপুর জেলা প্রতিনিধিঃ

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে প্রেম করে বিয়ে করার দেড় বছর পর গৃহবধূ মুক্তা দাসের (১৯) ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সে উপজেলার চাপাইর গ্রামের ভজন দাসের মেয়ে।

মঙ্গলবার (২৪ মে) সকালে উপজেলার সুত্রাপুর ইউনিয়নের গৃহবধূর শ্বশুর বাড়ীতে এ ঘটনা ঘটে। কালিয়াকৈর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) রকিবুল হোসেন ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধারের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

এসআই রকিবুল হোসেন নিহতের পরিবারের বরাত দিয়ে জানান, প্রায় দেড় বছর আগে উপজেলার সুত্রাপুর ইউনিয়নের নেপাল দাসকে প্রেম করে বিয়ে করে মুক্তা দাস। বিয়ের পর নেপালের বাবা-মা তাদের বিয়ে মেনে নেয়নি। এ নিয়ে প্রায়ই স্বামী নেপাল, শ্বশুর-শ্বশুড়ি ও নেপালের বোন মুক্তার ওপর নির্যাতন চালিয়ে আসছে। প্রেম করে বিয়ে করলেও বিয়ের কয়েকদিন পর নেপাল দাস মুক্তা দাসকে স্ত্রী হিসাবে মেনে নিতে পারছিল না। এসব নিয়ে স্থানীয়ভাবে কয়েকবার গ্রাম্য সালিশ বৈঠকও হয়েছে। পরে নেপাল ভারত যাওয়ার কথা বলে স্ত্রী মুক্তা দাসকে চাপাইর গ্রামে তার বাবার বাড়িতে রেখে যায়। মুক্তা দাস স্বামী নেপাল দাসকে ফোন দিলে জানায় সে ভারত চলে আসছে। এ মুহুর্তে সে দেশে আসতে পারবে না। এরপর থেকে মুক্তা দাস প্রায়ই তার বাবার বাড়ি থাকতেন। সোমবার (২৩ মে) মুক্তার মা দিপালী দাস মেয়ের শ্বশুরকে খবর দিয়ে মুক্তাকে নিয়ে যেতে বলে। মুক্তাকে শ্বশুর বাড়ি নিয়ে যাওয়ার পর থেকেই স্বামী নেপালের ছোট বোন তাকে বিভিন্নভাবে নির্যাতন শুরু করেন। এক পর্যায়ে মঙ্গলবার (২৪ মে) সকালে ঘরের দরজা বন্ধ করে দেয়। অনেকক্ষণ দরজা না খোলায় ডাকাডাকি করে সাড়াশব্দ না পেয়ে দরজার ফাঁক দিয়ে উঁকি দিয়ে দেখতে পায় মুক্তা ঘরের আড়ার সঙ্গে ফাঁসিতে ঝুলে রয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। ময়না তদন্ত প্রতিবেদন হাতে পাওয়ার পর নিশ্চিত হওয়া যাবে এটি হত্যা না আত্মহত্যা।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..
এই পত্রিকার সকল সংবাদ, ছবি ও ভিডিও স্বত্ত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ দৈনিক মাতৃজগত    
কারিগরি সহযোগিতায়ঃ Bangla Webs
banglawebs999991