মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ০৭:৪৬ অপরাহ্ন
ঘোষনা
হাবিবুল্লাহ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের উদ্যোগে প্রতিবাদ জনসভা একজন আদর্শ নেতা জহিরুল ইসলাম বাবু সাতক্ষীরা এসএসসি পরিক্ষায় অকৃতকার্য হওয়ায় ছাত্রী’র আত্মহত্যা মা কে ফেলে দিয়েছে সন্তানেরা, ভিক্ষা করে যাদের লালন পালন করেছিলেন। সাংবাদিক আজহারুল ইসলাম সাদী’র কন্যা এ গ্ৰেড পেয়েছেন সে সকলের নিকট দোয়া প্রার্থী! উন্নয়নের ধারা যাতে অব্যাহত না থাকে সেজন্য ষড়যন্ত্রকারীরা বিভিন্ন ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে- এমপি শাওন এসআই নয়ন সহ দুই পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নিতে পিবিআই এর সুপারিশ। লক্ষ্মীপুরে ১০ টাকার জন্য মাকে কুপিয়ে হত্যা : ছেলের আমৃত্যু কারাদণ্ড লক্ষ্মীপুরে অবৈধ ইটভাটা ধ্বংস করলো ভ্রাম্যমাণ আদালত। রাজধানীর পল্লবীতে ছাত্রলীগের নতুন কমিটিতে স্হান না পেয়ে আওয়ামী লীগ নেতাদেরকে কুপিয়ে জখম করেছে

চিংড়ির রেনু আহরণে ব্যাস্ত জেলেরা।

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ৭ এপ্রিল, ২০২২
  • ১০১ বার পঠিত

স্পেশাল করেসপন্ডেন্টঃ
লক্ষ্মীপুরের রামগতিতে মেঘনা উপকূল থেকে অবৈধভাব বিভিন্ন চর-চরাঞ্চলের জেলেরা অবাধে গলদা ও বাগদা চিংড়ির রেনু আহরণ করছে। চিংড়ির এ রেনু আহরণে প্রতিনিয়তই ধ্বংস হচ্ছে নানা প্রজাতির জলজ প্রানী ও মাছের পোনা।

উপজেলার আলেকজেন্ডার লঞ্চঘাট , সেন্টার বাজার,আলেকজেন্ডার মৎস ঘাট, বিবিরহাট , রামগতি মৎসঘাট, রঘুনাথপুর খালের মাথা,বয়ারচর উপকূলসহ আজাদ বাজার, কামাল বাজার চরের বিভিন্ন স্থানে অবৈধভাবে প্রতিদিন চিংড়ির লক্ষ লক্ষ রেনুপোনা আহরণ করছে নানা শ্রেণী পেশার মানুষ।

মার্চের শেষ সময় থেকে শুরু করে জুলাই পর্যন্ত প্রায় পাঁচ মাস উপকূলীয় অঞ্চলের হাজার হাজার নারী-পুরুষসহ জেলেরা মিলে চিংড়ি রেনু আহরণ করে জীবিকা নির্বাহ করছেন।

প্রশাসনের নজরদারি না থাকায় সরকারি নিষেধাজ্ঞার মধ্যেই প্রজনন মৌসুমে অবাধে চিংড়ি রেনুসহ অন্যান্য মাছ শিকার ও ক্রয় বিক্রয় করছেন জেলেরা। আলেকজেন্ডার লঞ্চঘাট এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে, রেনু আহরণকারীরা মশারি জাল ও ঠেলা জালে অন্যান্য মাছের পোনা ও জলজ প্রানী ফেলে দিয়ে শুধু গলদা ও বাগদা চিংড়ির রেনু সংগ্রহ করছে।

প্রভাবশালী মহল চড়া দামে ক্রয় করে প্লাস্টিকের ড্রাম ও মাটির টালিতে করে খুলনা, বাগেরহাট,ঢাকা, চট্টগ্রাম ও যশোরের বিভিন্ন চিংড়ির ঘেরে অধিক মুনাফায় বিক্রি করছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক রেনু নিধনকারী জানান বাগদা রেনু আহরণের আমার সংসার চলে এক ইঞ্চি থেকে দুই ইঞ্চি বাগদা ও গলদা চিংড়ি রেনু একশত পিস ২ শত টাকায় মহাজনদের কাছে বিক্রি করি। অভাবের সংসার তাই বেড়িবাধের কিনারায় বাস করি । অবৈধ জেনেও পেটের দায়ে এ কাজ করছি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যবসায়ী বলেন, চিংড়ির রেনু প্রতি পিস এক ইঞ্চি থেকে একটু বড় সাইজের রেনুগুলো ২ থেকে আড়াই টাকায় কিনলেও সব কিছু ম্যানেজ করে প্রতি পিস রেনুর দাম পড়ে ৪ থেকে ৫ টাকা।

স্থানীয়রা বলছেন, প্রশাসনকে এড়িয়ে অবাধে ধ্বংস করা হচ্ছে বিভিন্ন মাছের পোনা ও জলজ উদ্ভিদ।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..
এই পত্রিকার সকল সংবাদ, ছবি ও ভিডিও স্বত্ত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ দৈনিক মাতৃজগত    
কারিগরি সহযোগিতায়ঃ Bangla Webs
banglawebs999991