মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ০৪:২২ পূর্বাহ্ন
ঘোষনা
নারায়ণগঞ্জ (৩) সোনারগাঁয়ের মাটি ও মানুষের অভিভাবক জননেতা আলহাজ আব্দুল্লাহ আল কায়সার (এম পি)  পবিত্র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মোজাম্মেল হোসেন বাবু ত্যাগের মহিমায় সমুজ্জ্বল হোক পৃথিবী পবিত্র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন হুমায়ুন মিয়া পবিত্র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন খান সেলিম রহমান পবিত্র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন শিহাব তালুকদার লালমোহনে ভিজিএফ এর চাল বিতরণ করলে এমপি শাওন পবিত্র ঈদুল আজহার শুভোচ্ছা জানিয়েছেন সোনারগাঁ উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের চেয়াম্যান আলহাজ ইঞ্জিনিয়ার মাসুদুর রহমান মাসুম পবিত্র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ সোহেল রানা    রাজশাহীতে শিশু শিক্ষার্থীকে বেধড়ক পে’টা’লে’ন অধ্যক্ষ! গোলাম মওলা ফরিদপুরে ২০ টন সরকারি চাল জব্দ আটক ২

নবীগঞ্জ সরকারি খাস জমি থেকে মাটি কাটার মহোৎসব চলছে ।

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ১৯ মার্চ, ২০২২
  • ১৭০ বার পঠিত

হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জ নবীগঞ্জ উপজেলার আউশকান্দি ইউনিয়নের সুনামপুর সদরাবাদ এলাকায় সরকারি খাস জমি থেকে মাটি কাটার মহোৎসব চলছে। যে যার মতো মাটি কেটে নেওয়ার পাশাপাশি গভীর গর্ত করে মাটি কেটে বিক্রি করছে এক শ্রেণির মানুষ।গতকাল শনিবার সাবেক মেম্বার বাধাঁ দিলে তাকে পুলিশে ধরিয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়েছে মাটি খেকোরা। এতে করে সরকারি জমি হাতছাড়া হওয়ার পাশাপাশি কৃষি জমি ধ্বংসের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, আউশকান্দি ইউনিয়নের সদরাবাদ মৌজার সুনামপুর গ্রামের কাছে বরাক নদীর তীরে সরকারী খাস জমি থেকে মাটি কেটে নিচ্ছে আনসাদ মিয়া, রফিক মিয়া, বাবুল মিয়া গংরা। স্থানীয় লোকজন বাঁধা দিলে তারা পুলিমের ভয় দেখিয়ে বলে আমাদের উপর মহলে লোক আছে তোদের ভালো হবে না। সরকারী জায়গায় বড় বড় গর্ত সৃষ্টি করে মাঠি অন্যত্র বিক্রি করা হচ্ছে। এক্সলেটর মেশিন দিয়ে ট্রলি প্রতি আড়াই শ টাকা করে মাটি বিক্রি করছেন।

জানতে চাইলে আনসাদ মিয়া নামে এক ব্যক্তি জানান, তার নিজ বাড়ির গর্ত ভরাটের জন্য মাটি নিয়ে যাচ্ছেন। সবাই নিয়ে যাচ্ছেন তাই তিনিও নিচ্ছেন। রফিক মিয়া নামে এক ব্যক্তি জানান, দুই বছর আগে ব্যক্তি মালিকের কাছ থেকে তিনি এই জমি কিনেছেন। নিজের জমিতে মাছ চাষের জন্য গর্ত করে মাটি কেটে বিক্রি করছেন তিনি।

আউশকান্দি ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা আবু বকর জানান, ঐ এলাকায় প্রচুর সরকারি খাস জমি রয়েছে। মৌখিকভাবে মাটি কাটতে নিষেধ করা হয়েছে। না শুনলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
সুনামপুর গ্রামের সাবেক মেম্বার মুজিবুর রহমান শামসুল বলেন, আমি এসব সরকারী জায়গায় মাটি কাটার কাজে বাধাঁ দিলে আনসাদের দুলাভাই মুকিত মেম্বার আমাকে পুলিশে ধরিয়ে দিবে হুমকি প্রদান করেন। সরকারী জায়গা রক্ষার জন্য কেন আমি এসিল্যান্ড সাবকে জানালাম তার জন্য আমাকে প্রাননাশের হুমকি ও পুলিশে দেয়ার হুমকি দিয়ে মাটি কাটার কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।
আউশকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান দিলাওয়ার হোসেন জানান, সরকারি সম্পত্তি রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব ভূমি অফিসের। শুধু সদরাবাদ এলাকায় নয় আউশকান্দি ইউনিয়নে প্রচুর সরকারি খাস জমি রয়েছে। যার বেশির ভাগ জমি সম্পদশালীরা দখল করে রেখেছে। প্রশাসনকে মৌখিকভাবে বলার পাশাপাশি লিখিতভাবে জানানোর পরও কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি।

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) উত্তম কুমার দাশ জানান, এ বিষয়ে গুরুত্বের সাথে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আমরা বিষয়টি জেনেছি দুবৃত্তচক্র যতই শক্তিশালী হউক না কেন সরকারী মাটি নিতে পারেনা আমরা আইনগত ব্যবস্থা নিবো।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..
এই পত্রিকার সকল সংবাদ, ছবি ও ভিডিও স্বত্ত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ দৈনিক মাতৃজগত    
কারিগরি সহযোগিতায়ঃ Bangla Webs
banglawebs999991