বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ০৯:২৩ অপরাহ্ন
ঘোষনা
যশোরে বিদেশী পিস্তল, গুলি ও বার্মিজ চাকু সহ গ্রেফতার ০১ জন চাঁপাইনবাবগঞ্জে কোটা সংস্কারের দাবিতে শিক্ষার্থীদের মহাসড়ক অবরোধ করে  রংপুরে নিহত শিক্ষার্থী আবু সাঈদের দাফন সম্পন্ন দেশের সব স্কুল-কলেজ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা গোমস্তাপুরে বিএমডিএ গোমস্তাপুর জোনাল অফিস ভবন নির্মাণ কাজের  শুভ উদ্বোধন  ফরিদপুর শহরের আদর্শ বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ছাত্রীদের যৌন নিপীড়নের অভিযোগে কারাগারে মুরাদনগরে মাদককে “না” বলি সামাজিক সচেতনতা ও অপরাধমুক্ত সমাজ গড়ি কোটা আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধাদের মানববন্ধন ফরিদপুর মেডিকেলের পরিচালককে প্রত্যাহারের দাবিতে সড়ক অবরোধ ফরিদপুরে কিশোরীকে ধর্ষণের পর হত্যা সাত বছর পালিয়ে থেকেও শেষ রক্ষা হলো না সবুজের

রাজশাহীর উপ-কর কমিশনার “ঘুষের টাকাসহ” গ্রেপ্তার

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ৪ এপ্রিল, ২০২৩
  • ৯৪ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজশাহী আঞ্চলিক কর অফিসে অভিযান চালিয়ে ঘুষের ১০ লক্ষ টাকাসহ রাজশাহীর উপ-কর কমিশনার মহিবুল ইসলাম ভূইয়াকে গ্রেপ্তার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

 

অভিযানের নেতৃত্ব দেন দুর্নীতি দমন কমিশন রাজশাহী বিভাগীয় অফিসের পরিচালক কামরুল আহসান।

 

মঙ্গলবার (৪ এপ্রিল) বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে মহানগরীর কর অফিসে এই অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

প্রায় ৪ ঘণ্টাব্যাপী অভিযান চালিয়ে মহিবুল ইসলাম ভূইয়াকে জিজ্ঞাসাবাদ, বিভিন্ন নথিপত্র ও নগদ ১০ লক্ষ টাকা উদ্ধার করে দুদক।

 

অভিযানের সময় দুদকের কর্মকর্তা ও কর অফিসের কর্মচারীদের মধ্যে মারধরের অভিযোগ উঠে। ঘটনার খবর পেয়ে রাজপাড়া থানা পুলিশ কর অফিসে উপস্থিত হলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

 

কর অফিসের কর্মচারীরা জানান, আজ আমাদের অফিসের কর্মকর্তা কর্মচারীদের ওয়ার্কশপ চলছিল। এই সময় হঠাৎ জানতে পারি উপ-কর পরিদর্শকের রুমে ঢুকে ভেতর থেকে ছিটকানি দিয়ে সাদা পোশাকে কয়েকজন মহিবুল ইসলাম ভূইয়াকে মারধর করছে। এসময় মহিবুল ইসলাম ভূইয়া বাঁচাও বলে চিৎকার করলে অফিসের কর্মচারীরা দরজা ভেঙ্গে প্রবেশ করে। পরে জানতে পারি দুদক অভিযান করছে। তবে এমন অভিযান অন্যায় বলে তারা দাবি করেন।

 

এ বিষয়ে কর অঞ্চল রাজশাহীর কর কমিশনার শাহ্ আলী বলেন, সুনির্দিষ্ট কি অভিযোগ তা বলতে পারব না। তবে জানতে পেরেছি ডা: ফাতেমা সিদ্দিকার সম্পদের ২৬ কোটি টাকার কর ফাঁকির একটি ফাইল ছিলো। সেটি নিয়ে কাজ করছিলেন উপ-কর পরিদর্শক।

 

গ্রেপ্তারের পর মহিবুল ইসলাম ভূইয়া সাংবাদিকদের বলেন, আমি অফিসের বাইরে ছিলাম। তখন ডা. ফাতেমা সিদ্দিকা অফিসে ঢুকে টাকাগুলো ড্রয়ারে রাখছে। এই সময় দুদকের লোকজন আমাকে ধস্তাধস্তি করে রুমে ঢুকিয়ে দরজা আটকিয়ে মারধর করে। পরে দরজা খোলা হয়েছে।

 

দুর্নীতি দমন কমিশন রাজশাহী জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক কামরুল ইসলাম বলেন, আমাদের কাছে অভিযোগ ছিলো ডা. আয়েশা সিদ্দিকার সম্পদের উচ্চমূল্যে কর নির্ধারণ করার হুমকি দিয়ে আসছিলেন। একপর্যায়ে কর অঞ্চলের উপ-কর কমিশনার মহিবুল ইষলাম ভূইয়া ৬০ লক্ষ টাকা দাবি করে। সর্বশেষ ডা. আয়েশা সিদ্দিকার সাথে ৫০ লক্ষ টাকায় রফাদফা হয়। আজ সেই রফাদফার প্রথম কিস্তির ১০ লক্ষ টাকা দিতে গিলে আমরা তাকে হাতে নাতে গ্রেপ্তার করি।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..
এই পত্রিকার সকল সংবাদ, ছবি ও ভিডিও স্বত্ত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ দৈনিক মাতৃজগত    
কারিগরি সহযোগিতায়ঃ Bangla Webs
banglawebs999991