রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ০৭:২০ অপরাহ্ন
ঘোষনা
উল্লাপাড়ায় ট্রাক চাপায় এক নারী নিহত রায়গঞ্জে ৭ শতাধিক মানুষকে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা এবং ওষুধ প্রদান অনুষ্ঠিত শাহজাদপুরে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে প্রান গেল কৃষকের সকল প্রতিষ্ঠানের অগ্নিনির্বাপক ব্যবস্থার রাখার তাগিদ নানকের ঝিনাইদহের মহেশপুর সীমান্তে ০৫ কেজি স্বর্ণ ফেলে ভারতে পালাল চোরাকারবারিরা মির্জাগঞ্জ, দুমকি হবে মডেল উপজেলা এবি এম রুহুল আমিন চরফ্যাশনে হত্যার উদ্দেশ্যে শিশুকে হাতপা বেঁধে নির্যাতন মির্জাগঞ্জ, দুমকি হবে মডেল উপজেলা এবি এম রুহুল আমিন গোমস্তাপুরে জাতীয় ভোটার দিবস ২০২৪ পালিত হয়েছে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে একের পর এক হত্যাকাণ্ড ঘটেই চলেছে জাজিরা উপজেলায়

রায়গঞ্জে ঘনকুয়াশা ও তীব্র শীতে বিপর্যস্ত জনজীবন

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১৪ জানুয়ারী, ২০২৪
  • ৩৭ বার পঠিত

 

মোঃ রেজাউল করিম খান ভ্রাম্যমান প্রতিনিধি:   উত্তরাঞ্চলের সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জে গত দু দিন থেকে ঘনকুয়াশা ও হিমেল হাওয়ায় জেঁকে বসেছ শীত। পৌষের হাড় কাঁপানো শীতের কামড়ে কাঁপছে উপজেলাবাসী।

শুক্রবার (১২ জানুয়ারি) বিকাল পর্যন্তও উপজেলার কোথাও সূর্যের মুখ দেখা যায়নি। সকাল থেকেই সর্বত্র ঘনকয়াশার চাদরে ঢাকা ছিলো। তাপমাত্রা নেমে আসার পাশাপাশি প্রচন্ড হিমেল হাওয়ায় অচল হয়ে পড়েছে এলাকার সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষের জীবনযাত্রা। পৌষের মাঝে এই ঘনকুয়াশা ও হিমেল বাতাসের কারণে উপজেলাতে জেঁকে বসেছে শীত। গরম কাপড় ছাড়া সাধারণত কেউ বাইরে বের হচ্ছেন না। ঘরের মধ্যে শীতে জবুথুবু অবস্থা।সরেজমিনে উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন ঘুরে দেখা গেছে, ঘণকুয়াশা ও উত্তরের হিমেল হাওয়ার কারনে বিভিন্ন এলাকার প্রধান প্রধান সড়ক গুলিতে গণপরিবহ ছিলো কম। বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া কাউকে বাজারে আসতে দেখা যায়নি।এদিকে শীত জেঁকে বসায় গরম কাপড়ের দোকানে উপছে পড়া ভীড় লক্ষ্য করা যাচ্ছে। ঘন কুয়াশার সাথে হিমেল হাওয়া যুক্ত হয়ে জনজীবন নাকাল করে তুলেছে। দুপুরের আগে এমনি কোন কোন দিনের শেষ অংশেও সূর্যের দেখা মিলছে না। প্রচন্ড ঠান্ডা ও ঘন কুয়াশার কারনে খেটে খাওয়া মানুষ বিশেষ করে ভ্যান-রিক্সা শ্রমিক ও কৃষক-কৃষানীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। কনকনে ঠান্ডায় বৃদ্ধ ও শিশুদের মাঝে ডায়রিয়াসহ ঠান্ডাজনিত বিভিন্ন ধরনের রোগ দেখা দিচ্ছে।বিশেষ করে এ উপজেলার জনগণ শীতের দাপটে কাবু হয়ে পড়েছে। অনেকেই রান্নার চুলায় অথবা খড়কুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারণ করছে।

তাড়াশ কৃষি আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. জাহিদুল ইসলাম বলেন, শনিবার সকালে জেলায় সর্বনিম্ন আবহাওয়া রেকর্ড করা হয়েছে ১১ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গত এক সপ্তাহে এ অঞ্চলে এটি সর্বনিম্ন তাপমাত্র। আরও দুয়েক দিন কুয়াশাচ্ছন্ন থাকতে পারে এবং বয়ে যেতে পারে শৈত্যপ্রবাহ।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..
এই পত্রিকার সকল সংবাদ, ছবি ও ভিডিও স্বত্ত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ দৈনিক মাতৃজগত    
কারিগরি সহযোগিতায়ঃ Bangla Webs
banglawebs999991