সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১২:১৯ অপরাহ্ন
ঘোষনা
গাইবান্ধা ফুলছড়িত উপজেলায় নিখোঁজ ধান ব্যবসায়ী সোলায়মানের সন্ধানে স্বজনদের সংবাদ সম্মেলন। গোদাগাড়ীতে ১০ বোতল ফেন্সিডিল সহ ০১ জন আসামী গ্রেফতার । সাতক্ষীরার আশাশুনিতে ট্রাকের ধাক্কায় গৃহবধূ নিহত গাজীপুরের শ্রীপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১ নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁয়ে হাতুড়ী দিয়ে পিটিয়ে স্ত্রীকে খুন করলো স্বামী । প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘরের টিন ও কাঠ,দরজা চুরি হয়ে যাওয়া মালামালসহ ২ জন গ্রেফতার গাইবান্ধার পাঁচ সাংবাদিককে অকথ্য ভাষায় গালাগালা ও হুমকির ঘটনায় সাধারণ ডায়েরির (জিডি) তদন্তে অভিযোগের সত্যতা পেয়েছে পুলিশ। গাইবান্ধায় ট্রাকের ধাক্কায় অটোরিকশা যাত্রীর মৃত্যু। গাজীপুরের কালিয়াকৈরে চালককে হত্যার পর অটোরিকশা ছিনতাই গোদাগাড়ীতে সন্ত্রাসী কায়দায় দোকান ও কম্পিউটার ও আসবাবপত্র ভাঙচুর করে শিক্ষা বোর্ডে কর্মরত বকুল বাহিনী

রোজার শুরুতেই রাজশাহীর ফল বাজারে দামে আগুন

মারুফ আহমেদ 
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ৫ এপ্রিল, ২০২২
  • ১১০ বার পঠিত

মারুফ আহমেদ রাজশাহীঃ
রোজার শুরুতেই রাজশাহীর বাজারের সব ধরনের ফলের দাম বেড়ে গেছে। গতকাল সোমবার নগরীর সাহেববাজার, কোর্টবাজার ও শালবাগান বাজার ঘুরে এ চিত্র দেখা গেছে। এ নিয়ে সাধারণ মানুষ ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তবে ব্যবসায়ীরা বলছেন, তাদের কিনতে হয়েছে বেশি দামে। তাই বিক্রিও করছেন বেশি দামে।
বাজার ঘুরে দেখা যায়, প্রতিটি ফলের দাম ১০-৫০ টাকা পর্যন্ত বৃদ্ধি পেয়েছে।

যেমন তরমুজের দাম গত শনিবার ছিলো ৩৫-৪০ টাকা কেজি। রোজার প্রথম দিনে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪০-৫০ টাকা কেজিতে। আপেল ১৮০ টাকা থেকে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৪০ টাকা, বাসপাতি ২১০ থেকে বেড়ে এখন বিক্রি হচ্ছে ২২০-২৪০ টাকায়। খেজুর গত বছরের তুলনায় এবার কেজি প্রতি দাম বেড়েছে ৪০-৫০টাকা। রোববার সাহেববাজারে ১৮০-৮৫০ কেজি দরে খেজুর বিক্রি করতে দেখা যায়।

শুধু তাই নয়, কমলা ২০০ টাকা থেকে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৪০ টাকায়। মালটা বিক্রি হচ্ছে ১৮০-১৯০টাকা কেজি দরে। বেদানা ৩০০ থেকে বেড়ে এখন বিক্রি হচ্ছে ৩৫০-৪০০ টাকা কেজি দরে।
সাহেববাজারের ফল ব্যবসায়ী রাব্বি বলেন, কয়েকদিন ধরে তাদের ফল কিনতে হচ্ছে আগের চেয়ে বেশি দামে। তাই বাধ্য হয়ে তাদেরও একটু বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে। তরমুজ বিক্রেতারা জানান,হঠাৎ করে শনিবার তরমুজের নতুন চালানে মূল্য বৃদ্ধি পাওয়ায় তাদের বর্ধিত মূল্যে বিক্রি করতে হচ্ছে।

সাহেব বাজারে ফল ক্রেতা মোঃ রেজাউল বলেন, সারাদিন রোজা রাখার পরে তো আর ডাল ভাত খেয়ে ইফতার করা যায় না। তাই পরিবারের সদস্যদের জন্য একটু ফল নিতে এসে আহম্মক সেজে গেছেন। প্রতিটি ফলের মূল্য ২০-৫০ টাকা কেজিতে বেড়ে গেছে। কর্তৃপক্ষের বাজার মনিটরিং করা দরকার।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..
এই পত্রিকার সকল সংবাদ, ছবি ও ভিডিও স্বত্ত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ দৈনিক মাতৃজগত    
কারিগরি সহযোগিতায়ঃ Bangla Webs
banglawebs999991