শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:০০ পূর্বাহ্ন
ঘোষনা
যশোর জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) পুলিশের সফল অভিযানে ২০০ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার সহ গ্রেফতার-০২। পরিষদের ভিতরে আকটিয়ে মারধর, চাঁদা দাবির অভিযোগ ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে  মুক্তিযোদ্ধা দিবস উদযাপন ও শপথ গ্রহণ আওয়ামীলীগ আমলেই কৃষক তার উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্য মূল্য পায়-এমপি শাওন দক্ষিণ ছাত্রলীগের সম্মেলনের শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি দেখছে সভাপতি পত্যাশী ডলার সিকদার নওগাঁর ধামইরহাট উপজেলার খেলনা ইউনিয়নে আতঙ্কিত ভাবে জেলেকে পিটিয়ে গুরুতর জখম সাভার থানা অসহায় পরিবার পূর্ণবাসন বহু মুখী সমিতির নাম ধারন করে চলছে ক্ষমতার অপব‍‍্যবহার বিশেষ কালিয়াকৈরে ৩টি অবৈধ করাত কল উচ্ছেদ, জরিমানা ও যন্ত্রাংশ জব্দ শ্রীমঙ্গলে চা বাগান থেকে অজ্ঞাত ব্যক্তির মৃতদেহ উদ্ধার লক্ষ্মীপুরে জমি নিয়ে মেঝো ভাইকে হত্যা ছোট ভাই গ্রেফতার।

লক্ষ্মীপুরের রামগতিতে নিখোঁজের তিনদিন পর উদ্ধার মা ছেলে।

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ১৩ মে, ২০২২
  • ৬৭ বার পঠিত

স্পেশাল করেসপন্ডেন্টঃ
নিখোঁজ নয়, পারিবারিক কলহের জের ধরে ছেলে মেহেদি হাসানকে নিয়ে অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূ রোকসানা আক্তার ঘর ছেড়ে পালিয়ে গিয়েছিলেন৷পুলিশ বলছে, মেঝেতে পড়ে থাকা রক্ত মানুষের নয়। ওই পরিবারকে বিপদে ফেলতেই অন্য কেউ এ রক্ত মেঝেতে ফেলে যায়। রক্ত খুব দুর্গন্ধযুক্ত ছিল।শুক্রবার ১৩ মে বেলা ১১টার দিকে এসব তথ্য জানান, রামগতি থানার ওসি আলমগীর হোসেন। এর আগে সকালে রামগতি উপজেলার চর আলী আকবর গ্রামের হাজিরহাট এলাকা থেকে তাদের উদ্ধার করে পুলিশ।
ওসি জানান, পারিবারিক কলহের জের ধরে বুধবার ১১ মে সকালে ঘুম থেকে উঠে ছেলে হাসানকে নিয়ে তার মা রোকসানা পালিয়ে যায়। পরে তারা চট্টগ্রাম এক নিকটাত্মীয়ের বাসায় উঠেন। গৃহবধূর বাবার বাড়ি একজনকে জিজ্ঞেস করলে তিনি সত্যতা স্বীকার করেন। পরে নিজ থেকেই বৃহস্পতিবার ১২ মে রাতে ছেলেকে নিয়ে রোকসানা প্রথমে নোয়াখালী ও পরে রামগতির চর আলী আকবর গ্রামের হাজিরহাট এলাকার এক আত্মীয়ের বাড়িতে আসে। সেখান থেকে তাদের উদ্ধার করা হয়। রোকসানা উপজেলার চররমিজ ইউনিয়নের চর আফজল গ্রামের দিনমজুর আনোয়ার হোসেনের স্ত্রী।
স্থানীয় সূত্র জানায়, মঙ্গলবার ১০ মে রাতে খাওয়া শেষে আনোয়ার ও তার অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী রোকসানা ছেলে সন্তান নিয়ে এক সাথে ঘুমিয়ে পড়ে। রাতে ২ জনের কথা কাটাকাটি হয়। পরে সকালে ঘুম থেকে উঠে ছেলে মেহেদিসহ রোকসানাকে বিছানায় দেখা যায়নি। এতে আশপাশে খুঁজেও তাদের সন্ধান মেলেনি। বিষয়টি আনোয়ার প্রতিবেশিদেরকেও জানায়। একপর্যায়ে আশপাশের লোকজন ঘরে এসে মেঝেতে রক্ত দেখতে পায়। এতে তারা তাৎক্ষণিক পুলিশে খবর দেয়। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য প্রথমে ৭ জনকে আটক করা হয়। পরে ৬ জনকে ছেড়ে দিয়ে গৃহবধূর স্বামী আনোয়ারকে আটকে রাখা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..
এই পত্রিকার সকল সংবাদ, ছবি ও ভিডিও স্বত্ত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ দৈনিক মাতৃজগত    
কারিগরি সহযোগিতায়ঃ Bangla Webs
banglawebs999991