শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ০৯:৩৭ অপরাহ্ন
ঘোষনা
শ্রীপুরে গুলিতে ফরিদ নামে একজনের মৃত্যুর ঘটনায় ১টি বিদেশি পিস্তল সহ অভিযুক্ত ইমরান গ্রেফতার ফরিদপুরে গৃহবধূকে অ্যাসিড নিক্ষেপ যুবকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত নওগাঁয় মাদক মামলার যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি গ্রেফতার ত্রিশাল থানা পুলিশের সহযোগিতায় ত্রিশালে সংঘটিত ট্রিপল মার্ডারের ভিকটিমদের পরিচয় সনাক্ত, আসমি গ্রেফতার নওগাঁয় শুরু আম পাড়া, আড়াই হাজার কোটি টাকার বিক্রির সম্ভাবনা এমপি আনোয়ারুল আজিমকে যে ভাবে হ-ত্যা করা হয় বিস্তারিত —!! সিরাজগঞ্জে জেলা আওয়ামী মৎস্যজীবিলীগের উদ্যোগে ২১ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত গোমস্তাপুরের নওসিন জাতীয় পর্যায়ে শিক্ষা সপ্তাহ প্রতিযোগিতায় তৃতীয় হয়েছে মতিহার থানার অভিযানে ৩ অপহরণকারী গ্রেপ্তার হজে যাচ্ছেন অনন্ত জলিল সঙ্গে ২৫০ জনের টিমের

শ্রীপুরে দুর্নীতি মাধ্যমে ভূয়া প্রকল্প দেখিয়ে ৫০ লাখ টাকা অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ

শেখ মোঃ হুমায়ুন কবির, সিনিয়র ক্রাইম রিপোর্টার।
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ১ এপ্রিল, ২০২৩
  • ২৩৬ বার পঠিত

 

 

গাজীপুরের শ্রীপুর,বরমী ইউনিয়ন পরিষদের দুর্নীতিবাজ চেয়ারম্যান চেয়ারম্যান তোফাজ্জল হোসেনের, বিরুদ্ধে অভিযোগ তদন্তে প্রমাণিত হওয়ার পর দুর্নীতিবাজ চেয়ারম্যান তোফাজ্জল হোসেনের অপসারণের দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে বরমী ইউনিয়ন পরিষদের সাতজন ইউপি সদস্যসহ ইউনিয়ন পরিষদের কয়েক হাজার মানুষ। এসময় বিভিন্ন বয়সী মানুষ রাস্তার দু’পশে দাঁড়য়ে বিভিন্ন লেখা সম্বলিত ফেস্টুন ব্যানার হাতে বিক্ষোভ মিছিলে অংশ নেন।

গতকাল/আজ (১’লা এপ্রিল ২০২৩ইং) শনিবার সকালে শ্রীপুর উপজেলার বরমী ইউনিয়নের বরমী টু মাওনা আঞ্চলিক সড়কের সাতখামাইর বাজারে এ মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বরমী ইউনিয়ন পরিষদের ৪ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য সুমন আহমেদ তার বক্তব্যে বলেন, চেয়ারম্যানের দুর্নীতির বিষয়ে জানতে পেরে আমরা সাতজন ইউপি সদস্য চেয়ারম্যানের দুর্নীতির বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছি। এরপর থেকে চেয়ারম্যান আমাদেরকে বিভিন্ন ধরনের হুমকি ধামকি দিচ্ছে।

বরমী ইউনিয়ন পরিষদের ৮ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য মোঃ হারুন অর রশিদ খন্দকার বলেন, তদন্ত কমিটি ইতিমধ্যে ৫০ লাখ টাকা দুর্নীতি প্রমাণ পেয়েছে। আজ বরমীর জনগণ ফুঁসে ওঠেছে। বরমী ইউনিয়ন পরিষদের দুর্নীতিবাজ চেয়ারম্যান পদত্যাগ না করা পর্যন্ত আমরা জনসাধারণকে নিয়ে রাজপথে আন্দোলন চালিয়ে যাব।

উল্লেখ্য গত বছরে বরমী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তোফাজ্জল হোসেনের ইউনিয়নের একটি মাত্র ওয়ার্ডে নামমাত্র ভুয়া প্রকল্প দেখিয়ে সরকারের পঞ্চাশ লাখ টাকা দুর্নীতি করে আত্মসাৎ করে। এরপর বিষয়টি গণমাধ্যমে প্রকাশ হওয়ার পর স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অধীনে তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি ঘটন করে। তদন্ত কমিটি তদন্ত শেষে ৮৬ পৃষ্ঠার একটি তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয় স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট বিভাগে। তদন্ত প্রতিবেদনে চেয়ারম্যান দুর্নীতি প্রমাণ পেয়েছে মর্মে সুপারিশ করেছেন তদন্ত কমিটি। চেয়ারম্যানের দুর্নীতির বিষয়ে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পরপরই ইউনিয়ন পরিষদের সাতজন ইউপি সদস্য অনাস্থা দেয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..
এই পত্রিকার সকল সংবাদ, ছবি ও ভিডিও স্বত্ত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ দৈনিক মাতৃজগত    
কারিগরি সহযোগিতায়ঃ Bangla Webs
banglawebs999991